Home অপরাধ ভিকারুননিসার সাবেক অধ্যক্ষসহ দুই শিক্ষকের জামিন বাতিল

ভিকারুননিসার সাবেক অধ্যক্ষসহ দুই শিক্ষকের জামিন বাতিল

by Shohag Ferdaus

নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যায় প্ররোচণার মামলায় ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাবেক অধ্যক্ষসহ দুই শিক্ষকের জামিন বাতিল করেছেন আদালত। ২৩ আগস্ট রোববার ঢাকা মহানগর তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক রবিউল আলম এ আদেশ দেন।

জামিন বাতিল হওয়া আসামিরা হলেন- সাবেক অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস ও শাখা প্রধান জিন্নাত আরা।

সংশ্লিষ্ট আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর সালাহউদিন হাওলাদার বলেন, ‘এদিন আসামিদের পক্ষে আদালতে পদক্ষেপ (হাজিরা) গ্রহণ না করায় বিচারক তাদের জামিন বাতিল করেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজ মামলাটির সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য ছিল। এদিন অরিত্রীর মা বিউটি অধিকারীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আদালত পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ২৩ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন।’

এ মামলায় ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, শাখাপ্রধান জিন্নাত আরা ও শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনাকে আসামি করা হয়। মামলা দায়েরের পর ২০১৮ সালের ৫ নভেম্বর শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই বছরের ৯ ডিসেম্বর জামিন পান তিনি। অন্যদিকে গত বছরের ১৪ জানুয়ারি কলেজের অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস ও শাখাপ্রধান জিন্নাত আরা আত্মসমর্পণ করে জামিন পান।

অরিত্রীর আত্মহত্যায় পল্টন থানায় তার বাবা দিলীপ অধিকারী বাদী হয়ে ২০১৮ সালের ৪ ডিসেম্বর মামলাটি দায়ের করেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১৮ সালের ৩ ডিসেম্বর পরীক্ষা চলাকালে অরিত্রীর কাছে মোবাইল ফোন পান এক শিক্ষক। সে মোবাইল ফোনে নকল করেছে- এমন অভিযোগে অরিত্রীর মা-বাবাকে নিয়ে স্কুলে ডেকে নেয়া হয়। অরিত্রীর বাবা-মা তাকে নিয়ে স্কুলে গেলে ভাইস প্রিন্সিপাল তাদের অপমান করে কক্ষ থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। অধ্যক্ষের কক্ষে গেলে তিনিও একই আচরণ করেন। এ সময় অরিত্রী দ্রুত অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের হয়ে যায়। পরে শান্তিনগরে বাসায় গিয়ে বাবা-মা দেখেন, অরিত্রী তার কক্ষে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়নায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় ঝুলছে।

অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও স্কুল কর্তৃপক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটি প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়ায় স্কুলের অধ্যক্ষসহ তিন শিক্ষকেকে বরখাস্ত করা হয়।

ভয়েস টিভি/এসএফ

You may also like