Home বিশ্ব সেনা অভ্যুত্থানে মালির প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ

সেনা অভ্যুত্থানে মালির প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ

by Newsroom

সেনা অভ্যুত্থানে অংশ নেয়া সেনা সদস্যদের হাতে আটকের পর পদত্যাগ করেছেন মালির প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম বোবাকার কেইতা। একইসঙ্গে পার্লামেন্ট ভেঙে দেয়ারও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

১৮ আগস্ট হঠাৎ দেশটির রাজধানী বামাকো থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরবর্তী একটি প্রধান সামরিক ঘাঁটিতে গুলি ছোড়ার মধ্য দিয়ে এই অভ্যুত্থানের শুরু হয়। অভ্যুত্থান শুরুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সামরিক বাহিনীর বিদ্রোহী জুনিয়ররা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আটক করেন।

পরে সেনা অভুথ্যানের মুখে আটক হন প্রেসিডেন্ট বুবাকার ও প্রধানমন্ত্রী বোবো সিসো। গ্রেফাতারের পর তাকে সামরিক ক্যাম্পে রাখা হয়েছে। এছাড়াও সামরিক বাহিনীর বেশ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে আটক করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে আফ্রিকান ইউনিয়ন, দ্য কমিউনিটি অব ওয়েস্ট আফ্রিকান স্টেটস ইকোওয়াস ও ফ্রান্স।

এ বিষয়ে টেলিভিশনে প্রচারিত এক ভাষণে ইব্রাহিম বোবাকার বলেন, আজ সামরিক বাহিনীর কিছু অংশ সিদ্ধান্ত নিয়েছে হস্তক্ষেপ জরুরি। আমার কি আসলেই কোনও পছন্দ আছে? আমি রক্তপাত চাই না। এ কারণে আমি এই মুহূর্ত থেকে দায়িত্ব ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

২০১৮ সালে দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসেন কেইতা। তবে দুর্নীতি, অর্থনৈতিক অব্যবস্থাপনা এবং দেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতির আরও অবনতি ছাড়াও জিহাদি হামলা ও জাতিগত সহিংসতার মতো ঘটনাগুলোর কারণে ব্যাপক জনরোষের মুখে পড়েন তিনি।

এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই সরকার পতনের আন্দোলন চলছিল মালিতে। মালিতে চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার বিষয়ে করণীয় নিয়ে বুধবার (১৯ আগস্ট) জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে বৈঠকে হতে যাচ্ছে বলে জানাল আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

এ ঘটনায় কতজন সেনা অংশ নিয়েছেন তা এখনও নিশ্চিত নয়।

সূত্র: আল জাজিরা

ভয়েস টিভি/উন্টারন্যাশনাল ডেস্ক/টিআর

You may also like